শিরোনাম:
ফরিদগঞ্জে কুকুরের কামড়ে আহত ২০ কচুয়ায় মাদক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার মেঘনায় কার্গোর ধাক্কায় তলা ফেটেছে সুন্দরবন -১৬ লঞ্চের, নারী নিখোঁজ ষোলঘর আদর্শ উবি’র ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অ্যাডঃ হুমায়ূন কবির সুমন কচুয়ায় নবযোগদানকৃত প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে শিক্ষক সমিতি শুভেচ্ছা মতলব উত্তরে লেপ-তোশক তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে কারিগররা উপাদী উত্তর ইউনিয়নে দীপু চৌধুরীর স্মরণে মিলাদ ও দোয়া পশ্চিম সকদী ডিবি উচ্চ বিদ্যালয়ে নবগঠিত কমিটির দায়িত্ব গ্রহন মেঘনা নদীতে গোসল করতে গিয়ে তলিয়ে গেছে এক যুবক ফরিদগঞ্জের ঘনিয়া দরবার শরীফের পীরের সঙ্গে ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভুঁইয়ার সাক্ষাৎ

চাঁদপুর শহর রক্ষায় মেঘনা নদীতে বালি উত্তোলন বন্ধে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন 

reporter / ১২২ ভিউ
আপডেট : বুধবার, ৫ জানুয়ারী, ২০২২

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ চাঁদপুর শহর রক্ষায় সরকার বিভিন্ন উন্নয়ন  কর্মকাণ্ড বাস্তবায়ন করলেও শহর রক্ষায় মেঘনার নদীর বালি উত্তোলন বন্ধ হচ্ছে না। অদৃশ্য কারনে বালি উত্তোলন চালিয়ে যাচ্ছে একটি সংঘবদ্ধ চক্র। গত ২ জানুয়ারি হঠাৎ করে চাঁদপুর লন্ঞ্চঘাট এলাকায় ঢেবে গেলে তাৎক্ষণিক জেলা প্রশাসক অন্জনা খান মজলিশ সহ উর্ধ্বতন কর্মকতারা পরিদর্শন করতে যান।চাঁদপুরের মানুষের দীর্ঘদিনের দাবী মেঘনা নদীতে অবৈধ ভাবে অপরিকল্পিত বালি উত্তোলন বন্ধ করার। অথচ অদৃশ্য কারনে তা বন্ধ হচ্ছে না। কবে নাগাদ বন্ধ হবে তাও কেউ জানে না।
গতকাল বুধবার দুপুরে চাঁদপুর শহর রক্ষায় এলাকার লোকজন মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করে। মেঘনা নদীতে অবৈধ ভাবে ও অপরিকল্পিত বালি উত্তোলন বন্ধে  অবিলম্বে প্রশাসনের ব্যবস্থা গ্রহণ করতে দাবী জানান।মানববন্ধন কর্মসূচি তে অংশ গ্রহণ করা সবার দাবী মেঘনা নদীর বালি উত্তোলন বন্ধ করতে হবে। তারা বলেন, চাঁদপুর আমাদের প্রাণের শহর। আমাদের শেকড় চাঁদপুরে। সেই শহরের অব্যাহত নদী ভাঙনে আজ বিলীনের পথে। এসব আমাদের পীড়িত করে। তাই নৈতিক দায় থেকে আমরা এই দাবিতে নেমেছি। আশাকরি সরকার অতিদ্রুত চাঁদপুরকে নদী ভাঙন থেকে রক্ষার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিবেন।
২০১৯ সালে চাঁদপুর সদর ও হাইমচর উপজেলার মেঘনা নদী থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে সংশ্লিষ্ট প্রশাসনকে ব্যবস্থা নেয়ার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট।
সেই সঙ্গে কেন তা অবৈধ ঘোষণা করা হবে না এবং এ অবৈধ কাজের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইন অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হবে না- সেই মর্মে রুল জারি করেছিলো আদালত।
২০১৯ সালের ২৯ জানুয়ারি এলাকাবাসীর পক্ষে জেলার খালিশপুর গ্রামের মাহমুদুল হাসানের এক রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে ৩ ফেব্রুয়ারি বিচারপতি শেখ হাসান আরিফ ও বিচারপতি রাজিক-আল-জলিলের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ আদেশ দেন। ১২ ফেব্রুয়ারি উচ্চ আদালতের এ আদেশের কপি স্থানীয় প্রশাসনের কাছে পৌঁছেছে বলে জানা গেছে।


এই বিভাগের আরও খবর