শিরোনাম:
ফরিদগঞ্জে কুকুরের কামড়ে আহত ২০ কচুয়ায় মাদক মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামী গ্রেপ্তার মেঘনায় কার্গোর ধাক্কায় তলা ফেটেছে সুন্দরবন -১৬ লঞ্চের, নারী নিখোঁজ ষোলঘর আদর্শ উবি’র ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি অ্যাডঃ হুমায়ূন কবির সুমন কচুয়ায় নবযোগদানকৃত প্রাথমিক শিক্ষা অফিসারকে শিক্ষক সমিতি শুভেচ্ছা মতলব উত্তরে লেপ-তোশক তৈরিতে ব্যস্ত সময় পার করছে কারিগররা উপাদী উত্তর ইউনিয়নে দীপু চৌধুরীর স্মরণে মিলাদ ও দোয়া পশ্চিম সকদী ডিবি উচ্চ বিদ্যালয়ে নবগঠিত কমিটির দায়িত্ব গ্রহন মেঘনা নদীতে গোসল করতে গিয়ে তলিয়ে গেছে এক যুবক ফরিদগঞ্জের ঘনিয়া দরবার শরীফের পীরের সঙ্গে ড. মোহাম্মদ শামছুল হক ভুঁইয়ার সাক্ষাৎ

মতলবে যুবলীগ নেতা বাবু হত্যার ঘটনাস্থল তদন্তকারী দলের পরিদর্শন খুনীদের ফাঁসীর দাবীতে গ্রামবাসীর বিক্ষোভ মিছিল

reporter / ১০৭ ভিউ
আপডেট : রবিবার, ২৫ জুন, ২০২৩

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

মতলব উত্তরে গুলিতে নিহত যুবলীগ নেতা মোবারক হোসেন বাবু (৪৮) হত্যা মামলার ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন তদন্তকারী দল চাঁদপুর ডিবি পুলিশ।
 শনিবার ২৪ জুন বিকেলে উপজেলার মোহনপুর ইউনিয়নের বাহাদুরপুর গ্রামের নিহত বাবুর বাড়িতে এবং যেখানে নিহত হয়েছে সে ঘটনাস্থলে যান ডিবি পুলিশ। হত্যার ঘটনাস্থল বাহাদুরপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠ সংলগ্ন। ডিবির অফিসার ইনচার্জ মো. এনামুল হক, ওসি তদন্ত ও মামলার তদন্ত কর্মকর্তা আক্তার হোসেনসহ চৌকস টিম পরিদর্শনে অংশ গ্রহণ করেন এবং  বাবু হত্যা ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শীদের প্রাথমিক সাক্ষাৎকার নেন।
প্রত্যক্ষদর্শী ইমন, জহির, আমেনা বেগম, বিলকিস জানান, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যার হুমকির  প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশে মোহনপুর ইউপির মাথাভাঙ্গা আর্দশ উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয় ১৭ জুন। ঐ সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আ’লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য, সাবেক মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম। আমরা ঐ সমাবেশে যাওয়ার পথে মোহনপুর ইউপি’র চেয়ারম্যান কাজী মিজান তার ভাই ,কাজি মতিন ও কাজী হাবিবের নেতৃত্বে কাজী মিজানের কর্মী বাহাদুরপুর গ্রামের শরীফ, ছোবহান নুরু, সাদ্দামসহ  সন্ত্রাসী বাহিনী সমাবেশ যাওয়ার পথে গুলি করে ও দেশীয় অস্ত্র রামদা দিয়ে এলোপাতাড়ি কোপায় ও মারধর করে। এতে বাবু’সহ ৫ জন গুরুতর আহত হয়েছে। হাসপাতালে নেওয়ার পর ডাক্তার বাবু’কে মৃত ঘোষণা করেন। বাকীরা ঢাকা ও উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিচ্ছেন।
স্থানীয় ইউপি সদস্য আলমগীর হোসেন বলেন, আ’লীগের সমাবেশে যাওয়ার জন্য আমরা কিছু লোক গ্রামের দক্ষিণ পাশ্বে অবস্থান করছিলাম, এমন সময় খবর পেলাম উত্তর পাশ্বে হইচই পরেছে। গিয়ে দেখি আমার ৫ জন লোক আহত অবস্থায় পরে আছে। পরে তাদের হাসপাতালে নিয়ে যাই। আহতদের কাছে জানতে পাড়ি মিজান কাজীর ভাই ও কর্মীরা এ কাজ করেছে।
নিহতের ভাই আমির হোসেন কালু বলেন, আমার ভাইয়ের হত্যাকারীদের বিচার চাই।
এদিকে বাবু হত্যাকারীদের ফাঁসির দাবীতে বিক্ষোভ মিছিল করেছে গ্রামবাসী।
ঘটনার দিন ২জন ও পরদিন  প্রধান আসামী কাজী মিজানসহ ৭ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।


এই বিভাগের আরও খবর